নেত্র নিউজের প্রতিশ্রুতি।

জনগণের জন্য সাংবাদিকতা সম্পাদকমণ্ডলী December 26, 2019

বাংলাদেশ ও দেশটির জনগণকে মূল কেন্দ্রবিন্দুতে রেখে জনস্বার্থ সাংবাদিকতার অলাভজনক, নির্দলীয় ও স্বাধীন প্ল্যাটফর্ম হিসেবে আত্মপ্রকাশ করছে নেত্র নিউজ। এই বিশেষ ক্ষণে আমরা কারা, কেন আমরা এই উদ্যোগ নিয়েছি ও কীভাবে আমরা কাজ করতে চাই, তার একটি ব্যাখ্যা পাঠকদের সামনে তুলে ধরা প্রয়োজন।

নেত্র নিউজ মূলত বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের বাইরে অবস্থানরত নিবেদিত কিছু স্বাধীন সাংবাদিকের একটি উদ্যোগ।

আমাদের সম্পাদকীয় কার্যালয় অবস্থিত সুইডেনের মালমো শহরে। অনলাইন প্রকাশনা হিসেবে নেত্র নিউজ সুইডিশ প্রেস অ্যান্ড ব্রডকাস্টিং অথোরিটিতে নিবন্ধিত। সুইডেনের আইনি কার্যপরিধির অংশ হওয়ায়, সংবাদ সংস্থা হিসেবে আমরা (ও আমাদের সাথে যোগাযোগ স্থাপনকারী ব্যক্তিরা) সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতাবিষয়ক সুইডিশ আইন দ্বারা বিশেষভাবে সুরক্ষিত। একইসঙ্গে সংবাদ সংগ্রহ ও প্রকাশের ক্ষেত্রে খুবই কঠোর নৈতিক মানদণ্ড মেনে চলতেও আমরা বাধ্য ও অঙ্গীকারবদ্ধ।

নেত্র নিউজ বাংলাদেশ মিডিয়া নেটওয়ার্কের একটি উদ্যোগ। বাংলাদেশ মিডিয়া নেটওয়ার্ক একটি নিবন্ধিত অলাভজনক প্রতিষ্ঠান যার সকল কার্যক্রম পরিচালিত হয় স্বনামধন্য শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিকদের সমন্বয়ে গঠিত একটি স্বাধীন পরিচালনা পর্ষদের তত্বাবধানে। অর্থাৎ, আমরা আর দশটি লাভজনক সংবাদ প্রতিষ্ঠানের মতো নই। বাণিজ্যিক স্বার্থ বা মুনাফা অর্জনের লক্ষ্য আমাদের সাংবাদিকতা বা সম্পাদকীয় নীতিমালায় কোনই ভূমিকা রাখবেনা ও প্রভাব ফেলবেনা।

এখানে উল্লেখ করতেই হয়, বাংলাদেশী সংবাদ মাধ্যমগুলোর বর্তমান যে মালিকানা কাঠামো, তাতে অনেকসময়ই সংকীর্ণ রাজনৈতিক, কর্পোরেট ও গোষ্ঠীস্বার্থ প্রভাব বিস্তার করে। ফলে সাংবাদিকদের জনস্বার্থমূলক, নির্ভুল ও সুবিবেচনাপ্রসূত সাংবাদিকতার সামর্থ্য ক্ষুণ্ন হয়।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদেশে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার অবনমন ঘটেছে ব্যপকভাবে। পত্রপত্রিকা ও টিভি চ্যানেলগুলো সরকার, শাসকদল, রাষ্ট্রযন্ত্র, রাজনীতি ও ব্যবসাখাতের শক্তিশালী ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যায়, এমন সংবাদ প্রকাশ বা প্রচার করতে পারছে না। সাংবাদিক ও সম্পাদকরা সারাক্ষণ মামলা, গ্রেপ্তার, নানাবিধ হয়রানি ও নির্যাতনের আশঙ্কায় থাকেন। নিরাপত্তাজনিত কারণে নেত্র নিউজের সঙ্গে সম্পৃক্ত সাংবাদিকদের নাম প্রকাশ না করার যেই সিদ্ধান্ত আমরা নিয়েছি, তা থেকেই বাংলাদেশে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার বিদ্যমান চিত্রটি অনেকাংশে ফুটে উঠে।

বাংলাদেশে সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার এমন ভগ্নদশা থেকেই রচিত হয়েছে একটি অগণতান্ত্রিক কাঠামো। ফলে জনপরিধি কেবল সংকুচিতই হচ্ছে। বাংলাদেশে লাগামহীন দুর্নীতি, অপশাসন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের দায়ে ক্ষমতা ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিবিশেষকে জবাবদিহিতার আওতায় আনা যাচ্ছে না। জনস্বার্থকেন্দ্রিক সাংবাদিকতার মাধ্যমে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতেই নেত্র নিউজ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

বাংলায় নেত্র মানে চোখ। এই নাম বেছে নেওয়ার কারণ হলো, পর্যবেক্ষক বা ওয়াচডগ হিসেবে আমাদের যে ভূমিকা, সেটিই হবে আমাদের সাংবাদিকতার মূল। আমরা সদাসতর্ক ও সদাকৌতুহলী পর্যবেক্ষক হিসেবে সংবাদ প্রকাশ করবো সাংবাদিকতার সর্বোচ্চ মানদণ্ড বজায় রেখে। জনস্বার্থ, সুবিবেচনা ও নির্ভুলতা — এই তিন নীতি নির্ধারণ করবে আমরা কী পর্যবেক্ষণ করবো ও কীভাবে তা প্রকাশ করবো। সংবাদ সংস্থা হিসেবে আমাদের পাঠকদের কাছেই আমরা দায়বদ্ধ থাকবো, অন্য কারও কাছে নয়।

নেত্র নিউজের সর্বোচ্চ লক্ষ্য হলো জনগণের পক্ষে ক্ষমতাশালীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা। আমাদের পাঠকদের তরফে আমরা কঠিন প্রশ্নগুলো উত্থাপন করবো এবং পাঠকদের জন্য সেই প্রশ্নের উত্তরও খুঁজে বের করার চেষ্টা করবো, যেন গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক ইস্যুতে আমাদের পাঠকরা জেনেশুনে স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারেন।

যেকোনো সম্পাদকীয় সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে আমরা নিজেদের প্রথমেই যে প্রশ্নটি জিজ্ঞেস করবো সেটি হলো: “এতে করে কি জনস্বার্থ সংরক্ষিত হবে?”

সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে আমরা সবসময়ই সুবিবেচনার নীতিতে অটল থাকবো। থাকবো সতর্ক ও সামঞ্জস্যপূর্ণ। আমাদের প্রতিবেদনে উল্লিখিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে — বিশেষ করে যাদের নেতিবাচকভাবে সমালোচনা করা হয়েছে বা যাদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে — সবসময়ই নিজের স্বপক্ষে বক্তব্য বা ব্যাখ্যা দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে। শিশু ও মানুষের ব্যক্তিজীবন আমাদের প্রতিবেদনে উঠে আসার সম্ভাবনা থাকলে, আমরা বিশেষভাবে সতর্ক থাকবো। আমরা লিঙ্গ-সংবেদনশীল সাংবাদিকতা চর্চার ক্ষেত্রেও অঙ্গীকারবদ্ধ।

পাঠকরা যখন নেত্র নিউজে প্রকাশিত কোনো নিবন্ধ, এমনকী মতামত নিবন্ধও পড়বেন, তারা নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন যে, আমরা তথ্যের যথার্থতা নিরূপনে সংবাদ প্রকাশের বিভিন্ন ধাপে তথ্য যাচাই-বাছাই করি। তা সত্ত্বেও এটি অস্বীকার করা যাবে না যে, কখনও কখনও আমাদের ভুল হতে পারে। যদি তেমনটি ঘটে, আমরা খুব দ্রুতই তার সংশোধনী প্রকাশ করবো। আমাদের প্রতিবেদন খণ্ডন করে এমন বক্তব্য প্রকাশের ক্ষেত্রেও আমরা উদার থাকবো।

আমাদের প্রতিবেদনের শিরোনাম, সারসংক্ষেপ ও ছবির ক্যাপশনের ক্ষেত্রে আমরা বিশেষভাবে সতর্ক থাকবো যেন এতে নিবন্ধের মূল বিষয়বস্তু সঠিকভাবে প্রতিফলিত হয়। আমরা সার্চ ইঞ্জিনের জন্য প্রতিবেদন লিখবোনা বা অ্যালগরিদমের কথা মাথায় রেখেও শিরোনাম লিখবোনা। আমরা শুধু আমাদের পাঠকদের জন্যই সংবাদ প্রকাশ করবো।

আর ঠিক এই কারণেই, প্রিয় পাঠক, আপনার উদ্দেশে করা এই প্রতিশ্রুতি আমরা এখানে লিখে রাখছি।

এই অঙ্গীকার রেখেই নেত্র নিউজ তার যাত্রা শুরু করছে। ●