সরকার-বিরোধী ওয়েবসাইট আর বিএনপি-পন্থী ফেসবুক একাউন্ট থেকে ভূয়া খবরটি ছড়ানো হয়েছে।

সত্যতা পাওয়া যায়নি: শেখ হাসিনার জামাতা আটক হওয়ার খবর নেত্র নিউজ January 10, 2020

নেত্র নিউজের কয়েকজন পাঠক আমাদের সাথে যোগাযোগ করে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর জামাতাকে নিয়ে সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া একটি খবরের সত্যতা যাচাই করতে অনুরোধ করেন। খবরটি অন্তত দুইটি সরকার-বিরোধী ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে এবং ফেসবুকে কিছু বিএনপি-পন্থী একাউন্ট ও পেজের মাধ্যমে ছড়ানো হয়েছে।

খবরটিতে দাবি করা হয় যে শেখ হাসিনার জামাতা খন্দকার মাশরুর হোসেন মিতু (সায়েমা ওয়াজেদ পুতুলের স্বামী) সম্প্রতি অবৈধ টাকা পাচারের অপরাধে সংযুক্ত আরব আমিরাতে গ্রেফতার হয়েছেন এবং শারজাহতে একটি পুলিশ স্টেশনে আটক আছেন। খবরটিতে মাশরুর হোসেনের আইনজীবী হিসেবে দুবাইয়ের একজন আইনজীবীর নামও দেওয়া হয়। শারজাহ পুলিশের একটি সূত্রের বরাত দিয়ে খবরটিতে মাশরুর হোসেনের তথাকথিত সুইস ব্যাংক একাউন্টের নম্বরও উল্লেখ করা হয়, সাথে জুড়ে দেওয়া হয় অপ্রাসঙ্গিক কিছু মার্কিন ও ইউরোপীয় আইনের রেফারেন্স।

এই ব্যপারে নেত্র নিউজের পক্ষ থেকে গালফ নিউজের সিনিয়র একজন রিপোর্টারের সাথে যোগাযোগ করে খবরটির সত্যতা যাচাইয়ে সাহায্যের অনুরোধ করা হয়। রিপোর্টার আঘাদদির আলী শারজাহ পুলিশের কমান্ডার এবং ভাইরাল হওয়া খবরে উল্লেখিত আইনজীবীর সাথে কথা বলে নেত্র নিউজকে জানান, “আমি শারজাহ পুলিশের কমান্ডার ইন চিফের সাথে কথা বলেছি। শারজাহতে কোন পুলিশ স্টেশনে বা মানি লন্ডারিং সেকশনে এই নামে কোন ব্যক্তি আটক নেই। [ওই] আইনজীবীর অফিস থেকেও আমাকে জানানো হয়েছে যে এই মামলাটি তাদের নয়।”

নেত্র নিউজের ফ্যাক্ট-চেকাররা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ব্যাংকিং ডাটাবেজের মাধ্যমে তথাকথিত সুইস ব্যাংক একাউন্টের নম্বরটি যাচাই করতে গিয়ে দেখেছেন যে এর ফরম্যাটের সাথে সুইজারল্যান্ডের ব্যাংক একাউন্ট নম্বরের যে ফরম্যাট তার কোনই মিল নেই।

সিদ্ধান্ত: নেত্র নিউজ অবৈধ টাকা পাচারের অপরাধে খন্দকার মাশরুর হোসেন মিতু সংযুক্ত আরব আমিরাতে গ্রেফতার হয়েছেন এই খবরটির কোন সত্যতা পায়নি।●